একটি অলৌকিক থলে

 অনলাইন ডেস্ক: প্রসিদ্ধ সাহাবী হযরত আবু হুরায়রা রা.। তাঁর একটি অলৌকিক থলে ছিল। যে থলেটি কোনো সময় খেজুরশূণ্য হতো না। বরকতময় এ থলের কাহিনী নিজেই বর্ণনা করেছেন আবু হুরায়রা রা.। তিনি বলেন, একবার আমি নবীজী (সা.) এর কাছে কিছু খেজুর নিয়ে এলাম। বললাম, ইয়া রাসূলাল্লাহ! এ খেজুরগুলোতে বরকতের দুআ করে দিন।

নবীজী সেগুলো একসাথ করে বরকতের দুআ করে দিলেন। বললেন, তুমি এগুলো এ থলেতে রাখো। যখন তোমার প্রয়োজন হবে থলের ভেতর থেকে খেজুর নিবে, কিন্তু থলের সব খেজুর ঢেলে ফেলবে না।

নবীজীর কথা মতো আবু হুরায়রা (রা.) প্রয়োজন হলেই থলে থেকে খেজুর নেন। নিজে খান, অন্যদের খাওয়ান। নবীজীর দুআর বরকতে এতে এত বরকত হল যে, আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, এ থলে থেকে আমি অনেক ওয়াসাক (বিশেষ একটি পরিমাপ-প্রায় পাঁচ মন সমান) খেজুর আল্লাহর রাস্তায় খরচ করেছি।

এভাবে অনেকদিন চলল। আবু হুরায়রাও বরকতময় থলেটি সবসময় কাছে কাছে রাখেন। নিজের লুঙ্গিতে গুঁজে রাখেন, যাতে না হারায়। কিন্তু থলেটি একদিন হারিয়ে গেল। হযরত উসমান (রা.) নিহত হওয়ার দিন থলেটি যেন কোথায় পড়ে গেল। আর খুঁজে পাওয়া গেল না। আবু হুরাইরা (রা.)-এরও আর আফসোসের সীমা রইল না। কিন্তু আবু হুরায়রা রা.-এর এ থলের মাধ্যমে নবীজীর এক মুজেযা প্রকাশ পেল। নবীজীর দুআর বরকতে, আল্লাহর কুদরতে ছোট্ট একটা থলে থেকে মনকে মন খেজুর বের হল। বিশ্বাসী বান্দার ঈমান মজবুত হল। (জামে তিরমিযী, হাদীস:৩৮৩৯)

Facebooktwitterredditpinterestlinkedin
Share:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *