কুষ্টিয়ায় আইনজীবী ও গবেষক সিরাজ প্রামাণিকের ২৮ তম গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

সালমান শাহেদ: তরুন আইনজীবী, সাংবাদিক ও গবেষক সিরাজ প্রামাণিকের ২৮ তম আইন বিষয়ক গ্রন্থ ‘ধর্ষন মামলা পরিচালনার কলা-কৌশল’ বইটি গতকাল কুষ্টিয়ার নবান্ন রেষ্টুরেন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচিত হয়েছে। কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আল-মামুন সাগর এর সভাপতিত্বে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ কানাডিয়ান নাগরিক মিঃ ব্রাদার মার্ক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন। এ সময় বইটির উপর প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান ড. সাইদুর রহমান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া জজ কোর্টে পিপি এ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হাসানুল আসকার হাসু, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. রেজাউল করিম, ড. গৌতম কুমার, ড. রাশেদুজ্জামান, ড. আমানুর আমান, ড. ফিরোজ আলী, কুষ্টিয়া জিলা স্কুলের প্রদান শিক্ষক ইফতে খায়রুল ইসলাম, মোঃ জলিল উদ্দিন, সোনালী ব্যাংকের এজিএম হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টে আইনজীবী খোকসা সরকারী কলেজের ভুগোল বিভাগের শিক্ষক স্বপন মাহমুদ, ব্যবস্থাপনা বিভাগের চেয়ারম্যান সুলতান আহমেদ, সমাজসেবা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক কেকেএম ফজলে রাব্বী, রবীন্দ্র সাহিত্য সন্মেলন পরিষদের সভাপতি আলম আরা জুই, লেখক হাসান টুটুল প্রমুখ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন ফৌজিয়া তুজ জোহরা।

বইটি সম্পর্কে আলোচনা করতে আলোচকরা বলেন, যে সমাজে আইনের শাসন নেই, সে সমাজ সভ্য বলে বিবেচিত নয়। একটি সচেতন জনগোষ্ঠীই পারে সমাজে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে। আমরা চাই আমাদের দেশে আইনের শাসন নিশ্চিৎ হোক, ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হোক, মানুষ তার ন্যূনতম মানবিক মর্যাদা নিয়ে বেঁচে থাকুক। ধর্ষন মামলা বুঝতে, শিখতে এবং তা আদালতে প্রয়োগ করতে এ বইখানি নিঃসন্দেহে প্রভূত সাহায্য করবে। বইটি প্রকাশ করেছেন আইন বিষয়ক গ্রন্থের প্রকাশক ‘শরফুদ্দিন ল’ বুক কোম্পানী’। দেশের অভিজাত লাইব্রেরীগুলোতে বইটি পাওয়া যাচ্ছে। প্রতিটি অধ্যায় আইনের গৎবাঁধা মারপ্যাঁচের শব্দ পরিহার করে সহজবোধ্য করে রচিত হয়েছে।

প্রতিটি বিষয়ে দেখানো হয়েছে উদাহরণ। এতে আইনের বিষয়গুলো আর তাত্ত্বিক থাকেনি, হয়ে উঠেছে ব্যবহারিক। ফলে পাঠক সহজেই তাঁর সমস্যার সহজ সমাধান খুঁজে পাবেন। প্রতিটি বিষয়ে সর্বশেষ সংশোধনী থেকে তথ্য দেওয়া হয়েছে। সুবিন্যস্তভাবে সাজানোর কারণে বিষয়গুলো হয়ে উঠেছে সাবলীল। আইনের ভাষা কঠিন, পড়ে বোঝা কষ্টকর এ ধারণা পাল্টে যাবে বইটি পড়লে। উত্তরাধিকার সংক্রান্ত কোনো আইনি ঝামেলায় পড়লে কী করতে হবে, নিয়মকানুন কী, কোথায় যেতে হবে, কত খরচ হবে পাঠক খুব সহজেই এ বই থেকে পাবেন। একটি দেশে, একটি সমাজে সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য প্রয়োজন ব্যাপক জনগোষ্ঠীর আইন সম্পর্কে সচেতনতা। এ বাস্তবতার নিরিখে লেখকের এ বইখানি অপরাধ সচেতন একটি জনগোষ্ঠী সৃষ্টি করতে অবদান রাখবে। ৫৫ গ্রাম অফসেট কাগজে ছাপা বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা ২০৮। মূল্য ৩৫০ টাকা মাত্র। চমৎকার প্রচ্ছদ।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin
Share:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *