আত্মহত্যার ভিডিও দেখে গলায় দড়ি দিল ১২ বছরের কিশোরী!

অনলাইন ডেস্ক : বাবার মোবাইল ফোনে ভিডিও দেখছিল ১২ বছর বয়সী এক কিশোরী। সেই ভিডিও দেখে একটি ইলাস্টিক দড়ি নিয়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলে পড়ল মেয়েটি।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যে।

শনিবার নাগপুরের হংসপুরি এলাকায় শিখা রাঠৌড় নামের মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে। পুলিশের বরাতে এ তথ্য জানা গেছে।
পুলিশ বলছে, শনিবার বিকাল ৪ টার দিকে শিখাকে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে থাকতে দেখে তারই ছোট বোন। বোনকে এভাবে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে থাকতে দেখে ভয় পেয়ে মাকে ডেকে আনে সে। দ্রুত শিখাকে সেখান থেকে নামিয়ে এনে নিকটবর্তী হাসপাতালে নিয়ে যান মা। কিন্তু বাঁচানো যায়নি তাকে। হাসপাতালে চিকিত্সকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ঘটনার আগে বাবার মোবাইল ফোন নিয়ে ইউটিউবে আত্মহত্যার কোনও ভিডিও দেখেছিল শিখা। ওই ভিডিওর কথা মার কাছে গল্প করেও জানায় সে। মেয়ে যে নিজেই এমন একটা কাণ্ড করে বসবে, তা আঁচ করতে পারেননি শিখার মা।

এদিকে এ ঘটনায় স্তম্ভিত শিখার পরিবার ও স্থানীয়রা। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ মনে করছে, ওই ভিডিও দেখেই এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে শিখা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.