কুষ্টিয়ায় যুবক হত্যা মামলায় একই পরিবারের ৩জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড আদেশ দিয়েছে আদালত

কুষ্টিয়া,জেলা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিযার ভেড়ামারায় যুবক হত্যার দায়ে একই পরিবারের তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড আদেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহষ্পতিবার দুপুর দেড় টায় কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী জনাকীর্ণ আদালতে আসামীদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন।

দন্ড প্রাপ্ত আসামীরা হলেন ভেড়ামারা উপজেলার সাতবাড়িয়া হিসনাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত: নাগর মিস্ত্রীর ছেলে আব্দুল মান্নান-৫২, পূত্রবধু (আসামী আব্দুল মান্নানের স্ত্রী) মেরিনা খাতুন-৪০ এবং স্ত্রী (আসামী আব্দুল মান্নানের মাতা) মর্জিনা খাতুন-৭০। এছাড়া এমামলার অপর আসামী ছোট হযরতআলীকে বেকশুর খালাস দিয়েছেন আদালত।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২৪আগষ্ট দুপুরে ভেড়ামারা উপজেলার সাতবাড়িয়া হিসনাপাড়া গ্রামের রাস্তা দিয়ে নিহত যুবক খায়রুলের ভাই শাহিন কাঁচাপাট বোঝাই ট্রলি চালিয়ে যাওয়ার সময় পিছনে ছোট ছোট কয়েকটি শিশু ঝুলছিলো। শাহিন ট্রলি দাঁড় করিয়ে ওই বাচ্চাদের বকাবকি করায় আসামীরা যোগসাজসে ট্রলি চালককে ঘরে আটকিয়ে মারধর করতে থাকে। সংবাদ পেয়ে শাহিনের পারিবারে সদস্যরা ছাড়িয়ে নিতে ঘটনাস্থলে আসে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আসামীরা তাদের উপর চড়াও হয় এবং লাঠিসোটা নিয়ে হামলা করে মারধর করে। এঘটনায় শাহিনের ছোটভই খায়রুল গুরুতর জখমসহ আঘাতপ্রাপ্ত হন। আহত খায়রুলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

এঘটনায় নিহতের বড়ভাই উপজেলার দক্ষিন ভবানীপুর গ্রামের মৃত: তালিম উদ্দিন মন্ডলের ছেলে আমিরুল ইসলাম বাদি হয়ে ৪জনকে আসামী করে ভেড়ামারা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১৩, তারিখ ২৪/০৮/২০১৩, ধারা ৩২৫/৩০২/৩৪ দ:বি:।

মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৫ সালে ১৭জানুয়ারী আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন পুলিশ। আদালত ২০১৫সালের ৬ মে আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে স্বাক্ষ্য শুনানী শুরু করেন।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী জানান, পুলিশের দেয়া তদন্ত প্রতিবেদনে বিজ্ঞ আদালত দীর্ঘ স্বাক্ষ্য শুনানী শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে যুবক খায়রুল হত্যাকান্ডে জড়িত অভিযোগ সন্দেহাতীত ভাবে প্রমানিত হওয়ায় একই পরিবারের তিন আসামীর যাবজ্জাীবন কারাদ-াদেশ দিয়েছেন। রায় ঘোষনার সময় দ-প্রাপ্ত আসামীরাসহ খালাসপ্রাপ্ত আসামীও আদালতে উপস্থিত ছিলেন। থাকলেও দন্ড প্রাপ্ত মেজবার রহমানের ছেলে রইস উদ্দিন পলাতক আছেন। দন্ড প্রাপ্ত আসামীরা সম্পর্কে স্বামী-স্ত্রী ও পুত্র।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedin
Share:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *