ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীর প্র-পিতামহ আলী কামাল ছিলেন মুসলিম

অনলাইন ডেস্ক : ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন ব্রেক্সিটপন্থি বরিস জনসন। কনজারভেটিভ পার্টির লিডার হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বিশ্বের অন্যতম ক্ষমতাধর দেশের ৭৭তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নাম লেখালেন বরিস জনসন। মঙ্গলবার ব্রিটেন সময় দুপুর ১২টায় বরিস জনসনের নাম ঘোষণা করা হয় কনজারভেটিভ দলের প্রধান হিসেবে।

এদিকে, নতুন প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে উত্তাল হয়ে উঠেছে ব্রিটেনের রাজনীতি। নিজ দল ও জোটের সদস্যদের কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছেন বরিস জনসন। নিজের অতি রক্ষণশীল রাজনীতি দল ও সরকারের অনেকেই পছন্দ করছেন না। ফলে একাধিক মন্ত্রী পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। একই সিদ্ধান্ত নিতে পারেন আরো কয়েকজন।প্রয়োজনে চুক্তি ছাড়াই ব্রেক্সিট কার্যকরের নীতি জনসনের। এ কারণেই তাকে নিয়ে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। জনসন ক্ষমতা নেয়ার আগেই তাই মন্ত্রীসভা ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন বেশ কয়েকজন।

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নাম ঘোষণার পর পদত্যাগ করেছেন অর্থমন্ত্রী ফিলিপ হ্যামন্ড। তিনি বলেন,
জনসনের চুক্তি ছাড়া ব্রেক্সিট কার্যকরের সম্ভাব্য সিদ্ধান্ত দেশের জন্য কল্যাণকর নয়। অর্থমন্ত্রী হিসেবে আমার পদত্যাগের মাধ্যমে সে বার্তাই তাকে আরও স্পষ্টভাবে দিতে চাই আমি। বুধবার প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব ছাড়ার আগে তার কাছেই পদত্যাগপত্র জমা দেবো।

এছাড়া আরো পদত্যাগ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী এনি মিল্টন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এলেন ডানকান। একই সিদ্ধান্ত নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বিচার বিষয়ক মন্ত্রী ডেভিড, আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী রোরি স্ট্রুয়াট।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedin
Share:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *