কুমারখালীর ছেঁউড়িয়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে মহিলাকে পিটিয়ে জখম

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ॥ কুমারখালী ছেউরিয়া গ্রামের বিশ্বাস পাড়া এলাকার মিম খাতুন কে পিটিয়ে জখম করেছে একই এলাকার পপি খাতুন (৪৫) তার দুই ছেলে তুহিন, সোনা ও তার মেয়ে কামিনি। জানা যায়, গতকাল বিকেলে মিম খাতুন (২৪) তার বাড়ীর পাশের জংগল পরিষ্কার করছিলেন তখন প্রতিবেশী পপি খাতুন এসে তাকে জংগল পরিষ্কার করতে বাধা দেয়। তখন মিম খাতুন বলেন যে চারিদিকে ডেংগু রোগ মহামারির আকার ধারন করেছে তাই এই জংগল পরিষ্কার করা খুব জরুরি এই বলে আবার পরিষ্কার করা শুরু করেন তখন পপি খাতুন রাগান্নিত হয়ে মিম কে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে। মিম তার কথার প্রতিবাদ জানালে তাদের মধ্যে কথা কাটা কাটি শুরু হয়।

একপর্যায়ে তার দুই ছেলে তুহিন, সোনা ও মেয়ে কামিনি এসে অতর্কিত ভাবে মিম কে মারপিট শুরু করে তখন মিমের আত্ম চিৎকারে এলাকার মানুষ ছুটে আসলে পপি ও তার দুই ছলে ও মেয়ে পালিয়ে যায়। অত:পর এলাকাবাসীরা মিমের স্বামী সুমনকে খবর দিলে সুমন এসে মিমকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। উল্লেখ্য ইতি পুর্বে নানা কারনে মিমের পরিবারের সাথে পপির পরিবারের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এ ব্যপারে মিমের স্বামী সুমনের সাথে কথা বললে তিনি জানান আমার স্ত্রীকে যারা মেরেছে আমি তাদের বিচার চাই। বর্তমানে মিম কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের ৬ নাম্বার ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.