আল-আমিন কেমিক্যালের শেয়ার কিনছেন সাকিব

অনলাইন ডেস্ক :

 

আল-আমিন কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের ৪৮ শতাংশ শেয়ার কিনছেন (অধিগ্রহণ) ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। নিজের দুই প্রতিষ্ঠান মোনার্ক মার্ট ও মোনার্ক এক্সপ্রেস এবং ৫ জন সহযোগী নিয়ে ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেটে থাকা এই ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার কিনছেন সাকিব।

 

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড স্টক এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) গতকাল জানিয়েছে, পাঁচটি শর্তে এবং বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে এ প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বিএসইসির একজন কমিশনার গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, কয়েকজন উদ্যোক্তা আল-আমিন কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার কেনার প্রস্তাব করেন।

 

সূত্রে জানা গেছে, সাকিবের দুই প্রতিষ্ঠান মোনার্ক মার্ট ও মোনার্ক এক্সপ্রেস যথাক্রমে শেয়ারের ২.৪০ শতাংশ এবং ৪.৮০ শতাংশ মালিকানা পাবে। বাকি উদ্যোক্তারা হলেন—আমিনুল ইসলাম সিকদার, মো খায়রুল বাশার (ইশাল কমিউনিকেশনের প্রতিনিধিত্বকারী) এএফএম রফিকুজ্জামান, মাশুক আলম, হুমায়ুন কবির (লাভা ইলেকট্রোডস ইন্ডাস্ট্রিজের প্রতিনিধিত্বকারী) ও মুন্সী শফিউদ্দিন।

 

বিএসইসির এক চিঠিতে বলা হয়েছে, আল-আমিন কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের মোট শেয়ারের ৪৮ দশমিক ১৮ শতাংশ বা ২৪.৮ লাখ শেয়ার কতগুলো শর্তের ভিত্তিতে বিক্রি বা স্থানান্তরের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। শর্তগুলো হলো—কোম্পানিটির উদ্যোক্তা-পরিচালকদের সম্মিলিতভাবে ন্যূনতম ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণ করতে হবে। কোম্পানি নতুন শেয়ারহোল্ডারদের অন্তর্ভুক্ত করে একটি পরিচালনা পর্ষদ গঠন করবে, যারা কোম্পানিতে ন্যূনতম ২ শতাংশ বা তার বেশি শেয়ার ধারণ করবেন। পরিচালনা পর্ষদের পুনর্গঠন না হওয়া পর্যন্ত কোম্পানিটির মূলধন আর বাড়ানো যাবে না। প্রস্তাবিত শেয়ারের ক্রেতারা কোম্পানির উৎপাদন শুরু করবে। আর অধিগ্রহণ শেষ হওয়ার তিন মাসের মধ্যে ব্যাংকিং কার্যক্রমসহ মুলতুবি বিষয়গুলোকে নিয়মিত করবে।

 

প্রস্তাবিত ক্রেতা-শেয়ারহোল্ডাররা কোম্পানির কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কোম্পানিতে নতুন তহবিল বিনিয়োগ করবে। আলাদা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এবং তাদের বিপরীতে মূলধন প্রদান কমিশনের অনুমোদন সাপেক্ষে হবে। আর কোম্পানির সব শেয়ার স্থানান্তর কার্যকর করার পর অবিলম্বে সব শেয়ারকে ইলেকট্রনিক শেয়ারে রূপান্তরিত করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.