কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বন্ধুর ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহতের ঘটনায় নিরপরাধ ব্যক্তিদের নামে মামলার অভিযোগ

দৌলতপুর প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপনগর ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বন্ধুর ছুরিকাঘাতে আনোয়ার হোসেন (১৪) নামে এক কিশোর নিহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে নিরপরাধ লোককে ফাঁসিয়ে দিতে তৎপরতা শুরু করেছে একশ্রেণীর অসাধু ব্যক্তি। এই ঘটনায় ৩নং ফিলিপনগর ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ড সদস্য আমিনুল ইসলাম আন্টুকে আসামী করে উদ্দেশ্যমূলকভাবে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানান এলাকাবাসী। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন দুই কিশোরের বিরোধের জেরে আনোয়ার হোসেন নিহতের ঘটনাটি নিরপরাধ ব্যক্তিদের ঘাড়ে চাপাতে তৎপরতা চালাচ্ছে এলাকার প্রভাবশালী একটি মহল। প্রকৃতপক্ষে ওয়ার্ড সদস্য আমিনুল ইসলাম আন্টুর এই ঘটনার সাথে কোন সম্পৃক্ততাই নেই। তারপর এলাকার একটি মহল অনৈতিক সুবিধা আদায়ে নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মামলা দিয়ে হয়রানীর চেষ্টা করছে। মানবন্ধনে এলাকার কয়েক হাজার নারী পুরুষ অংশগ্রহন করেন।


জানাগেছে গত ১২ আগষ্ট সোমবার ঈদের দিন বিকেলে ফিলিপনগর পদ্মা নদীর ধারে আবেদের ঘাট এলাকায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলাকালে বৃষ্টির কারণে বন্ধু অষ্টম শ্রেণির ছাত্র আনোয়ার হোসেন (১৪) ও গরীব উল্লাহ রাব্বি (১৪) এর মধ্যে কথা ঠেলাঠেলি ও কথা কাটা কাটি হয়। এক পর্যায়ে রাব্বি বাড়ী থেকে বড় ভাই ছাব্বির (১৮) কে সাথে করে ছুরি নিয়ে এসে পরিকল্পিত ভাবে বন্ধু আনোয়ারকে ছুরিকাঘাত করে। এলাকার লোকজন রক্তাক্ত আহত আনোয়ারকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে, চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে আনোয়ার মারা যায়।
নিহত কিশোর আনোয়ার হোসেন এলাকার ইসলামপুর ঘোষপাড়া গ্রামের মজিবার বরাতির ছেলে, রাব্বি ও ছাব্বির এলাকার দারগার মোড় পাড়ার মিন্টু প্রামানিকের ছেলে।


এই ঘটনায় দৌলতপুর থানায় নিহত কিশোরের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedin
Share:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *