কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে কলেজ অধ্যক্ষের ওপর হামলা ও মারপিটের অভিযোগ

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি :

 

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পিএম কলেজের (ফিলিপনগর মরিচা ডিগ্রি কলেজ) অধ্যক্ষের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে বেধড়ক মারপিট করার অভিযোগ করা হয়েছে।

 

আজ৩০ জুন, রবিবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে উপজেলার ফিলিপনগর পিএম কলেজ রোড এলাকায় হামলা ও মারপিটের ঘটনা ঘটে।

 

অধ্যক্ষের অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চাকরির শর্তে পিএম কলেজে ১২ শতক জমি দান করেন কলেজপাড়ার সাহাবুদ্দিন দফাদার। পরবর্তীতে সাহাবুদ্দিন দফাদারের পরিবারের লোকজন চাকরি না পেলে তারা জমি ফেরত চান। আইনি জটিলতায় কলেজকে দান করা জমি ফেরত দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান। এরই জের ধরে পিএম কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান আজ সকালে মোটরসাইকেল যোগে কলেজ যাওয়ার পথে সাহাবুদ্দিন দফাদারের নেতৃত্বে ও নির্দেশে বাহার, রমান এবং মাহাবুল দফাদার মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে তার ওপর হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা অধ্যক্ষকে লোহার রড দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়।

 

অধ্যক্ষের ওপর হামলার ঘটনায় পিএম কলেজে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

 

হামলার বিষয়ে পিএম কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান বলেন, কলেজের জমি জোরপূর্বক ভোগদখল নিয়ে পিএম কলেজ পাড়া এলাকার সাহাবুদ্দিন দফাদারের নেতৃত্বে ও নির্দেশে বাহার, রমান এবং মাহাবুল দফাদার তার ওপর হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা তাকে লোহার রড দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে।

 

এ ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দিয়েছেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

 

পিএম কলেজের অধ্যক্ষের ওপর হামলা ঘটনার বিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি মাহাবুবুর রহমান জানান, কলেজ দান করা ১২ শতক জমি ফেরত চাওয়ার বিষয় নিয়ে কলেজ যাওয়ার পথে অধ্যক্ষের গতিরোধ করে জমিদাতারা। তবে তার ওপর হামলা ও মারপিটের খবরের সত্যতা পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় পিএম কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *