শৃঙ্খলিত থাকে শয়তান মাহে রমজানে

অনলাইন ডেস্ক: রমজান শব্দটি এসেছে আরবি শব্দের ‘রমজ’ মূলধাতু থেকে। এর অর্থ জ্বালিয়ে দেওয়া, পোড়ানো ও ভস্ম করে দেওয়া। বান্দা যেহেতু এই মাসে তার কুপ্রবৃত্তিসমূহ জ্বালিয়ে ভস্ম করে দেয়, তাই একে রমজান বলে। গুনাহের বোঝা দরবারে নিজেকে পেশ করে তারই অনুগত হিসেবে; আর এতেই নিহিত রমজানের মাহাত্ম্য। পবিত্র কোরানের যে আয়াতটি নাজিল হয়, তা হলো- ‘হে ঈমানদারগণ! তোমাদের ওপর রোযা ফরজ করা হয়েছে, যেভাবে ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্ববর্তীদের ওপর। যাতে তোমরা তাকওয়া অবলম্বন করতে পারো’। (সুরা: বাকারা, আয়াত: ১৮৩)

কুরআনুল কারিমে আরো বলা হয়েছে: ‘তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি এই মাস পাবে, সে যেন রোযা রাখে’। (সুরা: বাকারা, আয়াত: ১৮৫) রমজান মাসের ফরজকৃত রোজা পালনে আছে সীমাহীন ফজিলত ও অফুরন্ত বরকত। রয়েছে রহমতের অপরিমেয় ভাণ্ডার। এই মাস এলেই আল্লাহ পাক তার বান্দার প্রতি দয়ার দৃষ্টি বাড়িয়ে দেন; এবং আমলনামা ভরপুর করে দেন অগণিত সওয়াব ও নেয়ামতে। হাদিস শরীফে এসেছে, ‘যখন রমজান মাস আসে, আসমানের দরজাসমূহ খুলে দেওয়া হয়, আর শয়তানকে শৃঙ্খলিত করা হয়’। (সহীহ বুখারী ও মুসলিম)

Leave a Reply

Your email address will not be published.