যুবকের যাবজ্জীবন ,কুষ্টিয়ায় ক্লিনিক কর্মীকে হত্যার দায়ে

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ॥কুষ্টিয়া মডেল থানার একটি হত্যা মামলায় এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২০হাজার টাকা জরিমানা আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার বেলা ১১টায় কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী জনাকীর্ণ আদালতে আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন।

দন্ডপ্রাপ্ত আসামী হলেন- মেহেরপুর গাংনী উপজেলার মিনাপাড়া গ্রামের ইমান আলীর পূত্র সোহেল রানা(৩৫)।

আদালত সূত্রে জানায়, ২০১৭সালের ১৮ জুলাই রাত সাড়ে ৯টায় কুষ্টিয়া কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ মাঠে আসামী সোহেল রানা ও তার প্রেমিকা ক্লিনিক কর্মী নিহত শিউলী খাতুনের সাথে পূর্ব থেকে চলে আসা প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এসময় শিউলী খাতুন প্রেমিক সোহেল রানার সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করায় ক্ষুব্ধ সোহেল রানা গলায় ওড়না পেচিয়ে শ^াস রোধে শিউলীকে হত্যা শেষে লাশ ফেলে যায়। এঘটনায় নিহতের ছোট ভাই মো: শিমুল হোসেন বাদি হয়ে অজ্ঞাত যুবকের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ০৮ অক্টোবর আসামী সোহেল রানার বিরুদ্ধে দ:বি: ৩০২ ধারায় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা মডেল থানার পরিদর্শক সঞ্জয় কুমার কুন্ডু।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সকরারী কৌশুলী এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী জানান, কুষ্টিয়া মডেল থানায় ক্লিনিক কর্মী শিউলী খাতুন হত্যাকান্ডে দায়েরকৃত মামলার আসামী সোহেল রানার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ও স্বাক্ষ্য শুনানী শেষে আসামীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমান হওয়ায় তাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২০হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬মাসের কারাবাসের আদেশ দিয়েছেন বিজ্ঞ আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.