কুষ্টিয়ায় কলেজ শিক্ষিকার শ্লীলতাহানি মামলায় অধ্যক্ষের ১০বছর কারাদন্ড ও জরিমানা আদেশ আদালতের

কুষ্টিয়া মডেল থানায় কলেজ শিক্ষিকার শ্লীলতাহানি মামলায় একই কলেজের অধ্যক্ষের ১০বছর কারাদন্ড ও এক লক্ষ টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহষ্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় কুষ্টিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতের বিচারক মুন্সী মোঃ মশিয়ার রহমান জনাকীর্ণ আদালতে আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন।
দন্ডপ্রাপ্ত আসামী হলেন- কুষ্টিয়া শহরের মিলপাড়ার বাসিন্দা চৌধুরী আব্দুল আলীর পূত্র এবং সৈয়দ মাছুদ রুমী কলেজের অধ্যক্ষ চৌধুরী নুরুদ্দিন মো: সেলিম ওরফে সজল চৌধুরী(৫২)।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৩০মার্চ দুপুরে সৈয়দ মাছুদ রুমী কলেজের মহিলা কমন রুমের ওয়াস রুম সেরে বেরুনোর সময় আসামী কলেজের অধ্যক্ষ চৌধুরী নুরুদ্দিন মো: সেলিম ওরফে সজল চৌধুরী জোর পূর্বক এই শিক্ষিকার শ্লীলতাহানি ঘটান। এই ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষিকা নিজেই বাদি হয়ে এপ্রিল মাসের ৭তারিখে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আইনের দ:বি: ১০ ধারায় অভিযোগ এনে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ১৩ আগষ্ট আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন পুলিশ।

কুষ্টিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ কৌশুলী আকরাম হোসেন দুলাল জানান, কুষ্টিয়া মডেল থানার চাঞ্চল্যকর শিক্ষিকার শ্লীলতাহানির দায়ে একই কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে করা মামলাটি চার্জ গঠন পূর্বক বিজ্ঞ আদালত দীর্ঘ স্বাক্ষ্য শুনানী করেন এবং আসামীর বিরুদ্ধে আনীত নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আইনের দ:বি: ১০ ধারায় আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমানিত হওয়ায় তাকে ১০বছর কারাদন্ডসহ ১লক্ষ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬মাসের কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছন বিজ্ঞ আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.